গ্রিনকার্ড জব্দ করে তাহের আহমেদ চৌধুরী (৫৬) নামক এক বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠিয়েছে আমেরিকার অভিবাসন দপ্তরের কর্মকর্তারা। গ্রিনকার্ডের শর্ত না মানায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন।

২০১০ সালে আমেরিকার নাগরিক বোনের সূত্রে তাহের গ্রিনকার্ড পান। প্রতি বছরই একবার করে যুক্তরাষ্ট্রে এসে ১০/১২ দিন অবস্থান করে গ্রিনকার্ড টিকিয়ে রাখতে সক্ষম হলেও ট্রাম্প প্রশাসনের কঠোর নীতির কারণে এবার তা সম্ভব হলো না।

তাহের জানান, আমেরিকার লাসভেগাসের সিসকো লাইনের একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের চিঠি ছিল। সে অনুযায়ী গত ২০ জুন লসএঞ্জেলেস বিমানবন্দরে নামি। সেখানে অভিবাসন অধিদফতরের কর্মকর্তারা আমার গ্রিনকার্ড ভালো করে পরখ করার পর জানান, আমি সারা বছরই বাংলাদেশে থাকি। তাই গ্রিনকার্ডের প্রয়োজন নেই। তারা আমার গ্রিনকার্ড ও বাংলাদেশি পাসপোর্ট আটক করে একটি একটি নোটিশ হাতে দেন। নোটিশ অনুযায়ী আমাকে এক বছর যুক্তরাষ্ট্রে কাটাতে হবে। এরপরই গ্রিনকার্ড ও পাসপোর্ট ফেরত দেয়া হবে। কিন্তু আমাকে দু’সপ্তাহের মধ্যেই ঢাকায় ফিরতে হবে। চাকরিতে জয়েন করা জরুরি। এর জবাবে কর্মকর্তারা আমাকে বলেন যে, ঢাকায় ফিরতে হলে গ্রিনকার্ড সারেন্ডার করতে হবে এবং এজন্যে প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতার জন্যে অভিবাসন বিষয়ক এটর্নির সহায়তা নিতে হবে।

বাংলাদেশের সন্দ্বীপের সন্তান তাহের আহমেদ চৌধুরী তথ্য প্রযুক্তিতে মাস্টার্স করেছেন জাহাঙ্গিরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। বাংলাদেশের একটি বেসরকারি ব্যাংকে তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি।

NRB_News_pic_of_Taher