প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল সোমবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৫ প্রাপ্তদের হাতে পুরস্কার ও সম্মাননা তুলে দেন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শোবিজ অঙ্গনের অনেক তারকাদের মতো এই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন চিত্রনায়িকা শাবনূরও। তবে নির্ধাতির সময়ের মধ্যে উপস্থিত হতে না পারায় সম্মেলন কেন্দ্রের গেট থেকে ফিরে যান তিনি।

অভিনেত্রী শাবানার মতো শাবনূরকেও বহুদিন পর বড় কোনও অনুষ্ঠানে দেখার অপেক্ষায় ছিলেন অসংখ্য দর্শক-সমালোচক। কিন্তু পুরো অনুষ্ঠানজুড়ে শাবানার কান্না, আবেগঘন বক্তব্য আর আজীবন সম্মাননাপ্রাপ্তির বিষয়টি মুগ্ধতা ছড়ালেও শাবনূরকে খুঁজে পাওয়া যায়নি কোথাও!

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিশেষ অতিথি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, এ কে এম রহমত উল্লাহ এমপি ও তথ্য সচিব মর্তুজা আহমেদ। পুরস্কার বিতরণ শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। এতে দেশের বিশিষ্ট শিল্পীরা সংগীত ও নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে দর্শকদের মুগ্ধ করেন।

‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৫’ প্রদান অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে উল্লেখ ছিল, নির্ধারিত সময়ের আগেই ​আমন্ত্রিত অতিথিদের আসন গ্রহণ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানস্থলে ঢোকার পর আর কেউ সেখানে প্রবেশ করতে পারবেন না। শাবনূরের ক্ষেত্রে সেটাই হয়েছে। যানজটের কারণে নির্ধারিত সময়ে তিনি অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হতে পারেননি। ফলে তার মতো যারা শিল্পী-কলাকুশলী-সাংবাদিকরা নির্দিষ্ট সময়ের আগে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়েছিলেন, পরে তারা সবাই দ্রুত অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন।

তবে এ কারণে কোনো ক্ষোভ প্রকাশ না করে শাবনূর নিজেই নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন বলে উপস্থিত একাধিক অতিথি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। শাবনূর সেখানে বলেন, ‘আসলে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তাই সবার আগে। এটাই হওয়া উচিত। রাস্তায় যানজট থাকায় দেরি হয়ে গেছে। বিষয়টি নিয়ে আমি বিব্রত। কারণ, প্রধানমন্ত্রীর আগেই আমাদের পৌঁছানো উচিত ছিল। আমরা তো উনার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিংবা ব্যস্ত নই। ’

rupcare_shabnur