গর্ভে ১১ সপ্তাহের সন্তান। এই সময় একজন নারীর বিশ্রামে থাকারই কথা। কিন্তু জর্ডান হুইলি এই সময় কোর্ট দাপিয়ে খেলেছেন ২০২০ টোকিও প্যারালম্পিকে। ঐতিহ্যবাহী প্রতিযোগিতা উইম্বলডনে। শুধু খেলেনইনি, জাপানের ইউ কামিজিকে নিয়ে জিতেছেন দ্বৈত হুইলচেয়ার শিরোপাও। এ নিয়ে টানা চারবার উইম্বলডন শিরোপা উঠল তাঁর হাতে।

গর্ভে সন্তান নিয়ে শিরোপা জেতার উদাহরণ অবশ্য নতুন নয়। বছরের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতেছিলেন আট সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা সেরেনা উইলিয়ামস। তবে হুইলির ঘটনা একটু ব্যতিক্রম, তিনি টেনিস খেলেন শারীরিক প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে।
গর্ভে প্রায় তিন মাসের সন্তান নিয়ে টেনিস খেলাটা কতটা ঝক্কির, সেটাই বলছিলেন ২৫ বছর বয়সী উইলি, ‘ভেবেছিলাম, মে থেকে যদি গর্ভে সন্তান ধারণ করতে পারি, তবে উইম্বলডন খেলতে পারি। সেটা হয়েছেও। তবে বুঝতে পারিনি কতটা অসুস্থ হতে পারি। টানা তিন দিন আমি বাড়ি থেকেই বেরোতে পারিনি। ফ্রেঞ্চ ওপেনে সত্যি ভীষণ অসুস্থ ছিলাম। এতটাই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলাম ভেবেছিলাম এটা পেটের পীড়া। এমনকি চিকিৎসকও তা-ই ভেবেছিলেন। তবে উইম্বলডনের আগে কিছুটা প্রস্তুতি নেওয়ার সময় পেয়েছিলাম। জানতাম কীভাবে এটা সামলানো যায়।’
শিরোপা জেতার পর টুইট বার্তায় গর্ভের সন্তানের আলট্রাসনোগ্রাম দিয়ে হুইলি মজা করে লিখেছেন, ‘এ বছর উইম্বলডনে কিছুটা সহায়তা পেয়েছিলাম…।’ ব্রিটিশ এই নারী টেনিস খেলোয়াড়ের সন্তানের বাবা তাঁর কোচ ও প্রেমিক মার্ক ম্যাকক্যারোল। মার্ক নিজেও হুইলচেয়ার টেনিস খেলোয়াড়। হুইলির চোখে এখন ২০২০ টোকিও প্যারালম্পিকে। @BD Online Mediab07432149e114518a6d751f81101fcee-597cadd9129a7