বাতাসে উড়তে থাকা গুঞ্জনকে সতি্য প্রমাণ করে কাল চূড়ান্ত হয়ে গেল নেইমারের বার্সেলোনা ছাড়া। ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে আলোচিত দলবদল এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা

নেইমার যা পাবেন
* পিএসজিতে নেইমারের মূল বেতনই হবে ৩০ মিলিয়ন ইউরো, যা বার্সেলোনায় তাঁর বেতনের প্রায় দ্বিগুণ!
* বার্সাকে ২২২ মিলিয়ন ইউরো দিয়েই দলবদলটা শেষ করতে পারলে নেইমারকে ৪০ মিলিয়ন ইউরো ‘সাইনিং বোনাস’ দেবে পিএসজি।
* পিএসজি বোর্ডের মালিকানাধীন যত হোটেল আছে, সেসবের আয় থেকে একটা নির্দিষ্ট হারে অর্থ পাবেন।
* ইচ্ছা হলেই ব্রাজিলে যাওয়ার জন্য পাবেন একটা ব্যক্তিগত জেটবিমান।

‘এমএসএন’-এর সমাপ্তি
‘এম’ আছেন, ‘এস’ আছেন। শুধু আলাদা ঠিকানায় নতুন চ্যালেঞ্জের খোঁজে বেরিয়ে গেলেন ‘এন’। ভেঙে গেল সময়ের, এমনকি অনেকের চোখে সর্বকালেরই অন্যতম সেরা আক্রমণত্রয়ী—এমএসএন। মেসি, সুয়ারেজ, নেইমার। মেসি তো ছোটবেলা থেকেই বার্সেলোনায়, ২০১৩ সালে আসেন নেইমার, পরের বছর সুয়ারেজ। তিন বছরে এই ত্রিফলার ৩৬৪ গোল, ১৭১ ‘অ্যাসিস্ট’, ৯ ট্রফি, আর সবুজ মাঠে রোমাঞ্চের শিহরণ জাগানো দুর্দান্ত সব মুহূর্ত, সব এখন শুধুই ইতিহাসের বর্ণিল একটা অংশ। এই সময়ে মেসির গোল ১৫৩টি, সুয়ারেজের ১২১টি, নেইমারের ৯০টি।

 সব রেকর্ড ভেঙে চুরমার
নেইমারকে পেতে দলবদলের রেকর্ড ভেঙেচুরে ফেলছে পিএসজি। আগের রেকর্ডটিকেও মনে হচ্ছে, এ আর এমন কী! নেইমারকে ধরে ফুটবলের সবচেয়ে দামি পাঁচ দলবদল

                        কোত্থেকে কোথায়                     দাম (ইউরো)

নেইমার                বার্সেলোনা-পিএসজি             ২২২ মিলিয়ন

পল পগবা              জুভেন্টাস-ম্যান. ইউনাইটেড      ১০৫ মিলিয়ন

গ্যারেথ বেল            টটেনহাম-রিয়াল মাদ্রিদ          ১০০ মিলিয়ন

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো  ম্যান. ইউনাইটেড-রিয়াল মাদ্রিদ  ৯৪ মিলিয়ন

গঞ্জালো হিগুয়েইন      নাপোলি-জুভেন্টাস               ৯০ মিলিয়ন

মেসির বিদায়ী শুভেচ্ছা
এই প্রথম লিওনেল মেসি ইনস্টাগ্রামে কোনো পোস্ট করলেন নেইমারকে নিয়ে। তাতেই থাকল শেষের সুর। বার্সেলোনায় চার বছরে মাঠে, মাঠের বাইরে দুজন হয়ে গিয়েছিলেন খুব কাছের বন্ধু। একে অন্যকে কত গোল গড়ে দেওয়া, কতশত গোলের উদ্‌যাপনে আলিঙ্গনে বদ্ধ হয়েছিলেন একে অন্যের। সবই এখন স্মৃতি! স্মৃতিগুলোই ইনস্টাগ্রামে মেসি তুলে আনলেন নেইমারের সঙ্গে বার্সায় কাটানো সময়ের অনেক ছবি দিয়ে বানানো ভিডিওতে। যেটির আবেগঘন ক্যাপশন, ‘নেইমার, তোমার সঙ্গে কাটানো এই চারটি বছর অনেক আনন্দের ছিল, বন্ধু। জীবনের নতুন এই ধাপে তোমাকে শুভকামনা। তোমাকে ভালোবাসি আমি।’

‘লোভী’ নেইমার
এত দিন যাঁকে নিজেদেরই একজন ভেবেছেন, তাঁর চলে যাওয়াটা বার্সেলোনা সমর্থকদের সহজে মানতে পারার কথা তো নয়! টুইটার-ফেসবুকজুড়ে ‘নেইমার, প্লিজ থেকে যাও’ অনুরোধ বিফল হওয়ার পর অনেকে রেগেই গেছেন। নেইমার তাঁদের চোখে একজন ‘অর্থলোভী’। এতটাই রাগ, বার্সেলোনার স্টেডিয়াম ন্যু ক্যাম্পের সামনে কিছু পোস্টারও সেঁটে দিয়েছেন কিছু বার্সেলোনা সমর্থক। যাতে নেইমারের ছবির দুই পাশে ডলারের চিহ্ন আঁকা। ছবির ওপরে লেখা: ‘ধরিয়ে দিন: প্রতারক!’ আর নিচে, ‘লোভীদের চলে যাওয়াই উচিত, বার্সেলোনা শুধু তাঁদের জন্যই যাঁরা এই জার্সিটাকে ভালোবাসে।’

 অথঃ অর্থ সমাচার
বার্সেলোনার সভাপতি স্পষ্ট বলে দিয়েছেন, নেইমারকে নিতে হলে তাঁর বাই-আউট ক্লজের পুরো ২২২ মিলিয়ন ইউরোই দিতে হবে পিএসজিকে। সেটি করতে হলে স্প্যানিশ লিগ কর্তৃপক্ষের কাছেই টাকাটা জমা দিতে হবে। তবে স্প্যানিশ লিগের সভাপতি হাভিয়ের তেবাসও জানিয়ে দিয়েছেন, এত টাকা নিয়ে পিএসজি এলেই উয়েফা, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, সুইস আদালত…সব জায়গায় নালিশ করবেন তাঁরা। অভিযোগপত্রও নাকি তৈরি। তাহলে নেইমারের টাকাটা কীভাবে দেবে পিএসজি?

এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সম্ভাব্য উপায়টি হলো, বার্সা বা স্প্যানিশ কর্তৃপক্ষকে পিএসজি নিজেরা টাকাটা দেবে না। দেবেন নেইমার। পুরো ২২২ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে নিজে বার্সেলোনার কাছ থেকে স্বাধীন হয়ে যাবেন। তা এত টাকা নেইমার পাবেন কীভাবে? পিএসজির কাছ থেকেই! খুলে বলা যাক। নেইমারকে ২০২২ বিশ্বকাপের শুভেচ্ছাদূত করতে ৩০০ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তি করতে যাচ্ছে কাতারি কোম্পানি কাতার স্পোর্টস ইনভেস্টমেন্ট (কিউএসআই)। মজার ব্যাপার, এই কিউএসআই-ই আবার পিএসজিরও মালিক। এই টাকা দিয়েই বার্সেলোনাকে ২২২ মিলিয়ন ইউরো পরিশোধ করে নেইমার ‘ফ্রি’ হয়ে যাবেন। এরপর যোগ দেবেন পিএসজিতে।

এভাবে দলবদল করায় ফ্রেঞ্চ কর্তৃপক্ষকে প্রায় ৮০ মিলিয়ন ইউরো কর দিতে হবে পিএসজিকে। তবে এতে সুবিধাটা হলো, পিএসজিকে আর উয়েফার ‘আর্থিক সদাচরণ নীতি’র (ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে) ঝামেলায়ই পড়তে হবে না।bbcd1decba03bd923c56438c54473c10-5982349f21e8b