ন্যু ক্যাম্পে কাল ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যা করেছেন, তাতে শাস্তি হিসেবে ৪ থেকে সর্বোচ্চ ১২ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেতে পারেন—এমনটাই শোনা যাচ্ছিল ম্যাচের পর থেকেই। শেষ পর্যন্ত পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন রিয়াল তারকা। সঙ্গে জরিমানা করা হয়েছে ৩ হাজার ৮০৫ ইউরো।

আবেদন করেছিলেন পেনাল্টির। রেফারি পেনাল্টি তো দিলেনই না, উল্টো ডাইভ দেওয়ার অপরাধে হলুদ কার্ড দেখান রোনালদোকে। ম্যাচে যেটি ছিল তাঁর দ্বিতীয় হলুদ কার্ড। দুই হলুদে হলো লাল! সিদ্ধান্ত মানতে পারেননি, হতাশায় রেফারির পিঠে ধাক্কা মেরেছিলেন পর্তুগিজ উইঙ্গার।

স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের ৯৬ ধারা অনুযায়ী, কোনো খেলোয়াড় রেফারির দিকে সামান্য উগ্র আচরণ করলেও সেটি অপরাধ। এই ধারায় স্পষ্ট করে বলা আছে, সামান্য উগ্রভাবে হলেও রেফারিকে ধরা, ধাক্কা বা ঝাঁকুনি দেওয়া যাবে না। যার শাস্তি ৪ থেকে সর্বোচ্চ ১২ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা। শেষ পর্যন্ত রোনালদোর শাস্তি হয়েছে পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা। তবে, এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে ১০ দিনের মধ্য আপিল করতে হবে রোনালদোকে।

কাল ন্যু ক্যাম্পে রোনালদো প্রথম হলুদ কার্ডটা দেখেন জার্সি খুলে গোল উদ্‌যাপনের কারণে। সেটিই পরে বড় হয়ে গেছে তিনি দ্বিতীয় হলুদ কার্ডটাও দেখায়। যদিও রিপ্লে দেখে মনে হয়েছে, হয়তো রেফারিই ভুল ছিলেন। ম্যাচ শেষে নিজের প্রতিবেদনে ঘটনাটি উল্লেখ করে রেফারি রিকার্দোস দে বার্গোস বেনগোয়েক্সিয়া লিখেছেন, ‘লাল কার্ড দেখানোর পর সে আমাকে সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ হিসেবে হালকা ধাক্কা মেরেছে।’

লাল কার্ডের শাস্তি হিসেবে এমনিতেই রোনালদো আগামীকাল ফিরতি লেগটা খেলতে পারতেন না। তবে রেফারিকে ধাক্কা মারার শাস্তি হিসেবে তাঁকে আরও চার ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে রয়্যাল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন (আরএফইএফ)। সব মিলিয়ে তাই পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটাতে হবে পর্তুগিজ উইঙ্গারকে। রোনালদোর এই নিষেধাজ্ঞা চ্যাম্পিয়নস লিগের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। সূত্র: এএফপি, গোল।

যে ম্যাচগুলোয় নিষিদ্ধ রোনালদো
প্রতিপক্ষ          টুর্নামেন্ট                  তারিখ
বার্সেলোনা     স্প্যানিস সুপার কাপ     ১৬ আগস্ট089ac23ca59e1e93fd380c2d58d8b991-5991c8db55cb7
দেপোর্তিভো    লা লিগা                   ২০ আগস্ট
ভ্যালেন্সিয়া     লা লিগা                  ২৭ আগস্ট
লেভান্তে         লা লিগা                  ৯ সেপ্টেম্বর
সোসিয়েদাদ    লা লিগা                 ১৭ সেপ্টেম্বর