নির্যাতন-নিপীড়নের মুখে বাংলাদেশে পারিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দেশে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য মিয়ানমার সরকার সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের পরও রাখাইনে সেনা অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এখনো প্রকাশ্যে রোহিঙ্গাদেরকে গুলি করে হত্যা করেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। একারণে রাখাইন থেকে এখনো রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পারিয়ে আসছেন। এদিকে গত ২৮ নভেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মংডুতে সেনা সদস্যরা এক রোহিঙ্গা যুবককে গুলি করে হত্যা করে।

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, মংডুর নাকফুরা গ্রামের নুরুল আলমের ছেলে মো. আনিস (৩৩) মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে নিকটস্থ বাজার থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনে ফিরে আসার সময় দুইজন সেনা সদস্য আনিসের গতিরোধ করে এবং তার ঘর থেকে বের হওয়ার কারণ জানতে চায়। আনিস খাবার কিনতে বাজারে যাওয়ার কথা বলাতে সেনা সদস্যরা তার দিকে অস্ত্র তাক কর এবং অনেকের সামনেই তাকে গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনায় আবারো ওই এলাকায় রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

রাখাইনে যেসব গ্রামে এখনো রোহিঙ্গারা রয়ে গেছেন সেসব গ্রাম অবরোধ করে রেখেছে সৈন্য ও তাদের উগ্রপন্থী মগেরা। তাদের অনাহারে রেখে মারার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে প্রশাসন। জীবিকার সন্ধানে কোনো রোহিঙ্গাকে ঘর হতে বের হতে দিচ্ছে না। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে বাজারে যেতেও বারণ করা হয়েছে। এমনকি চিকিৎসার জন্যও গ্রামের বাইরে যাওয়া রোহিঙ্গাদের জন্য বন্ধ। ফলে অবরুদ্ধ রোহিঙ্গারা অনাহারে-অর্ধহারে থাকতে না পেরে বাংলাদেশমুখী হচ্ছেন।

BD Online Media

rohinga