সন্ধ্যার ম্যাচের জন্য আগেভাগে চলে আসা ডিজে ব্রাভো তখন ডিস্ক জকির পাশেই ছিলেন। কিন্তু ‘চ্যাম্পিয়ন’ গানটা তো বাজতে শোনা গেল না। গানের অবশ্য দরকার ছিল না। ক্রিস গেইল ছন্দটা ধরে ফেলেছেন ততক্ষণে। বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে খুলনা টাইটানসের বোলারদের নাচিয়ে তুলে নিয়েছেন টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে ১৯তম, বিপিএলে নিজের চতুর্থ সেঞ্চুরি।

গেইল-ঝড় তাহলে উঠল! যদিও ৫০ ও ৫১ রানের দুটি ইনিংস দেখা গেছে। কিন্তু নামটা যখন গেইল, যাঁর বিধ্বংসী ব্যাটিং দেখতে স্টেডিয়ামের গ্যালারি ভরে যায়, ফিফটি-টিফটিতে মন ভরবে কেন! আজ সাপ্তাহিক ছুটির দিকে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের গ্যালারিভরা দর্শকদের হতাশ হতে হয়নি। গেইল-শো দেখে আজ তাদের পয়সা ষোলো আনাই উশুল! গেইল নাচলেন, নাচালেন! অবশ্যই খুলনা সমর্থকেরা বাদে।

দর্শকেরা খুশি হলেও স্বাভাবিকভাবে মাহমুদউল্লাহ ভীষণ হতাশ। এমনই ভাগ্য তাঁদের, গেইলের রুদ্ররূপটা দেখলেন নকআউট পর্বে এসে। টুর্নামেন্টজুড়ে ভালো খেলেও জ্যামাইকান ওপেনারের অতিমানবীয় অপরাজিত ১২৬ রানের কাছে সলিলসমাধি খুলনার স্বপ্ন। গেইল যেদিন বিরাট দেয়াল হয়ে দাঁড়ান, কার সাধ্য সেটি টপকানোর! মাহমুদউল্লাহ তাই বিষণ্ন মুখে বললেন, ‘গেইল-ঝড় যেদিন ওঠে, সেদিন থামানো মুশকিল। আজ সেটির প্রমাণ।’

তবে নিজেদের দুর্ভাগা বলতে চান না খুলনা অধিনায়ক, ‘ভাগ্য খারাপ বলব না। জানি সে অনেক বড়মাপের খেলোয়াড়। ভালো ইনিংস খেলার সামর্থ্য তার আছে। সবই জানি, সে থিতু হয়ে গেলে কতটা ভয়ংকর হতে পারে। দ্রুত আউট না করা গেলে মূল্য দিতে হবেই।’

সেটা তো জানাই। কিন্তু গেইল এই যে এত ঠান্ডা মাথায় খুনে ব্যাটিং করে যান, এর রহস্যটা কী? রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা আগেও দেখেছেন ক্যারিবীয় ওপেনারকে। তবে এবার যতটা দীর্ঘ সময় ধরে কাছ থেকে দেখছেন, ততটা নিশ্চয়ই আগে দেখা হয়নি।
সেই অভিজ্ঞতা থেকে গেইলের দুর্দান্ত খেলার কিছু রহস্য উন্মোচন করলেন মাশরাফি, ‘আমি যতটুকু দেখেছি ওকে, নির্ভার থাকতে পছন্দ করে। রুমে সব সময় ঘুমাতেই থাকে! এটাই হয়তো ওকে বাড়তি সুবিধা দেয় মাঠে নির্ভার থাকতে। ওর সঙ্গে যত ম্যাচ খেলেছি, ড্রেসিংরুমে কখনো দেখিনি মানসিকভাবে হতাশ হতে বা যেদিন রান করেনি সেদিন তাড়াহুড়ো করতে। সব সময়ই শান্ত থাকে। ব্যাটিংয়ের আগে ধীরে ধীরে তৈরি হয়ে মাঠে নামে।’

আজ খুলনাকে ৮ উইকেটে হারিয়েও টুর্নামেন্টে এখনো ফাইনাল নিশ্চিত হয়নি রংপুরের। ফাইনাল পর্যন্ত যেতে পারলে আরও দুটি ম্যাচ পাবে তারা। তাতে পাওয়া যাবে আরও দুটি সম্ভাব্য গেইল-শো! একা গেইলই যে বিপিএলের মতো আসরের রং বাড়িয়ে দিতে পারেন, আজ বেশ বোঝা গেল।

BD Online Media

gail